আসন্ন বাজেটে পর্যটন শিল্প সংশ্লিষ্ট মিডিয়ার কর কমানো এবং মিডিয়া কর্মীদের আর্থিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবী জানিয়েছে বিটিএএমএফ

0
143

আসন্ন বাজেটে দেশের ট্যুরিজম ও এভিয়েশন সংশ্লিষ্ট পত্র-পত্রিকা ও মিডিয়াগুলোর করপোরেট কর ৩৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১০ শতাংশ করা, নিউজপ্রিন্ট আমদানির উপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট বাদ দেয়া এবং পর্যটন সংশ্লিষ্ট গণমাধ্যম কর্মীদের জীবনের ঝুঁকি ও আর্থিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবী জানিয়েছে দেশের ট্যুরিজম ও এভিয়েশন সংশ্লিষ্ট পত্র-পত্রিকা ও মিডিয়াগুলোর মালিকদের সংগঠন ‘বাংলাদেশ ট্যুরিজম এ্যাণ্ড এভিয়েশন মিডিয়া ফোরাম (বিটিএমএফ)’। সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও প্রেসিডেন্ট কাজী রহিম শাহরিয়ার স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ দাবী জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনা পরিস্থিতিতে ট্যুরিজম ও এভিয়েশন সংশ্লিষ্ট পত্র-পত্রিকা ও মিডিয়াগুলোর বিজ্ঞাপন শূন্যের কোঠায় নেমে এসেছে। মিডিয়াগুলোর গ্রাহক আশঙ্কাজনক হারে কমে গেছে। ফলে মারাত্মক আর্থিক লোকসান গুনতে হচ্ছে এসব মিডিয়াগুলোকে। মিডিয়ার কর্মীদের মাসিক বেতন, অফিস ভাড়া, ব্যবস্থাপনা ব্যয় ইত্যাদি ক্ষেত্রে এসব মিডিয়া কোনো সরকারী সুবিধা পাচ্ছে না।
শ্রম আইন অনুযায়ী, সংবাদপত্র একটি শিল্প। ২০১৪ সালে সংবাদপত্রকে সেবা শিল্প ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু এ শিল্প সেবা হিসেবে সরকারের কাছ থেকে কোনো সুবিধা পাচ্ছে না। যদিও তৈরি পোশাকশিল্প মুনাফানির্ভর শিল্প হওয়া সত্তে¡ও এর করপোরেট কর ১০ থেকে ১২ শতাংশ। অথচ সংবাদপত্র সেবা শিল্প হওয়া সত্ত্বেও করপারেট কর ৩৫ শতাংশ। বর্তমান করোনা সংকট থেকে উত্তরণের জন্য পর্যটন সংশ্লিষ্ট পত্র-পত্রিকা সহ সকল সংবাদপত্রের করপোরেট কর ১০ শতাংশ করা দরকার।
বিটিএমএফ-এর পক্ষ থেকে সংবাদপত্রের বিজ্ঞাপন আয়ের উপর টিডিএস ৪ থেকে ২ শতাংশ এবং এআইটি ৫ শতাংশের বদলে শূন্য শতাংশ করার দাবী জানানো হয়। এতে আরও বলা হয়, বর্তমান করোনা সংকটে সব খাতই প্রণোদনা, সহায়তা বা ছাড় পাচ্ছে। অথচ পর্যটন সংশ্লিষ্ট পত্র-পত্রিকা সহ সমগ্র গণমাধ্যম এর বাইরে রয়েছে।

মিডিয়া কর্মীদের সহায়তা বিষয়ে বিটিএমএফ-এর পক্ষ থেকে বলা হয় গণমাধ্যম কর্মীদের নিরাপত্তা, জীবনের ঝুঁকি ও আর্থিক সহায়তার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা অত্যন্ত জরুরী। যদিও সরকারের পক্ষ থেকে সাংবাদিকদেরকেও সহায়তা প্রদানের কথা বলা হয়েছে। কিন্তু আদৌ কি তারা সেই সহায়তা পেয়েছেন?

পর্যটন শিল্পের বিকাশ ও প্রসারের জন্য বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় সরকারী উদ্যোগে দেশের পর্যটন আকর্ষণ সমূহের প্রচারের ব্যবস্থা করতে হবে। পর্যটন শিল্পের পণ্য সমূহকে দেশি-বিদেশি পর্যটকদের কাছে পরিচিত করা এবং উক্ত পণ্যের বাজার সৃষ্টির জন্য প্রচারের অংশ হিসেবে পর্যটন সংশ্লিষ্ট মিডিয়াগুলোতে বিজ্ঞাপন প্রদান করতে হবে। সর্বোপরি দেশের ট্যুরিজম ও এভিয়েশন বিষয়ক মিডিয়া ও এর কর্মীদের যাবতীয় সমস্যা সমাধানে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবী জানায় বিটিএমএফ।

আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে বা এই বিষয়ে কোন কিছু জানানোর থাকলে নীচের মন্তব্য বিভাগে লিখতে ভুলবেন না । আপনার ভ্রমণ পিয়াশি বন্ধুদের সাথে নিবন্ধটি শেয়ার করে নিন যাতে তারাও জানতে পারে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here