ভাটিয়ারী লেক | চট্টগ্রাম

0
1265

সংক্ষিপ্ত বিবরণঃ

চট্টগ্রাম শহর থেকে মাত্র ১৫ কিঃমিঃ দূরত্বে সীতাকুণ্ড উপজেলার দক্ষিণাংশে ভাটিয়ারী ইউনিয়ন অবস্থিত। সবুজ পাহাড়, স্ফটিকের মত স্বচ্ছ লেকের পানি, সেনাবাহিনী নিয়ন্ত্রিত গলফ কোর্স এসবকিছু মিলিয়ে অসাধারণ প্রাকৃতিক রূপবৈচিত্রে ভরপুর ভাটিয়ারী( Bhatiary Lake )। সম্পূর্ণ অঞ্চলটি সেনাবাহিনী নিয়ন্ত্রিত হওয়ায় নিরাপত্তা ব্যবস্থাও খুব উন্নত।

ভাটিয়ারী গলফ এ্যান্ড কান্ট্রি ক্লাব বাংলাদেশের ২য় বৃহত্তম। এটি সীতাকুন্ডের অন্যতম পর্যটন আকর্ষণ স্থান যা প্রাকৃতিক লেক এবং পাহাড় দিয়ে আবৃত। পাহাড়ের পাদদেশে গড়ে ওঠা ভাটিয়ারী গলফ ক্লাবের গলফ কোর্সের দৈর্ঘ্য প্রায় ৬৫০০ গজ। ক্লাবটি এর সদস্য এবং অতিথিদের দেশের সেরা কোর্সগুলির একটিতে আন্তরিক এবং বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশের মধ্যে একটি মানসম্পন্ন গলফিং অভিজ্ঞতা অর্জনের সু্যোগ দেয়। এ ক্লাবের সদস্য সংখ্যা প্রায় ৮০০। গলফ কোর্সটির চারপাশের প্রকৃতি একে বাংলাদেশের অন্যতম সুন্দর কোর্সের  মর্যাদা এনে দিয়েছে। এখানে সারা বছর ধরে নানা দেশী এবং আর্ন্তজাতিক গলফ টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত হয়। ক্লাবের সামনেই রয়েছে এক গলফারের ভাস্কর্য।

ভাটিয়ারী-হাটহাজারী সড়কে মিনিট খানেক গাড়ি এগুলেই দর্শনার্থীরা পাহাড়ের রোমাঞ্চকর অভিজ্ঞতা লাভ করবেন। সড়কের দু’ধারে রয়েছে জোড়া লেক। বর্ষাকালে যখন ভাটিয়ারী লেকের পানি উপচে পড়ে তখন ভ্রমণপিয়াসীরা এ দৃশ্য উপভোগ করতে আসে। পর্যটকেরা চাইলে লেকে নৌকাভ্রমণের স্বাদ নিতে পারবেন। তারা নির্দিষ্ট টাকার বিনিময়ে লেকে ছিপ দিয়ে মাছ শিকারের সুযোগও পাবেন। এখানে বিভিন্ন ধরনের এবং বিভিন্ন জাতের গাছ ও পশুপাখি দেখা যায়। ভাটিয়ারী সানসেট পয়েন্ট থেকে পর্যটকদের জন্য সূর্যাস্ত দেখার অসাধারণ সুবিধার ব্যবস্থাও রয়েছে। যদিও এই এলাকা বাংলাদেশ মিলিটারী একাডেমীর নিয়ন্ত্রনাধীন, ভ্রমণকারীরা যথাযথ কর্তৃপক্ষের পূর্বানুমতি সাপেক্ষে এ এলাকা ভ্রমণ করতে পারবেন।

কিভাবে যাবেনঃ

চট্টগ্রাম নগরীর প্রবেশ মুখ অলংকার সিটি গেইট এলাকা থেকে ভাটিয়ারীর দূরত্ব প্রায় সাড়ে ৮ কিলোমিটার।

চট্টগ্রাম শহর থেকে সরাসরি যৌথ কিংবা একক ভাবে সিএনজি চালিত অটোরিক্সা যোগে ভাটিয়ারী যাওয়া যায়। ভাড়া: দেড়’শ থেকে দুই’শ টাকা।

এছাড়া চট্টগ্রাম নগরীর প্রবেশ মুখ অলংকার সিটি গেইট এলাকা থেকে পাবলিক বাসে ভাটিয়ারী যাওয়া যায়। ভাড়া: জনপ্রতি ১৫ থেকে ২০ টাকা।

আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে বা এই বিষয়ে কোন কিছু জানানোর থাকলে নীচের মন্তব্য বিভাগে লিখতে ভুলবেন না । আপনার ভ্রমণ পিয়াশি বন্ধুদের সাথে নিবন্ধটি শেয়ার করে নিন যাতে তারাও জানতে পারে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here