শতবর্ষী বটগাছ | খাগড়াছড়ি

0
1521

সংক্ষিপ্ত বিবরণঃ

পাহাড়রাণী খাগড়াছড়িতে রয়েছে আকাশ-পাহাড়ের মিতালী, উপজাতীয় সংস্কৃতির বৈচিত্র্যতা, আর সবুজের অপার সমারোহ( shotoborshi bot gach khagrachori )। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে আর রহস্যময়তায় ঘেরা খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা প্রকৃতিপ্রেমী ও ভ্রমণবিলাসীদের জন্য এক আদর্শ স্থান।প্রকৃতির অনন্য সৌন্দর্য ছড়িয়ে আছে এ জেলার আনাচে-কানাচে। এ জেলার বৈচিত্র্যময় জীবনধারা ও প্রাকৃতিক সৌন্দর্য সবাইকে করে বিমোহিত। আর এই খাগড়াছড়িতেই রয়েছে শতায়ুবর্ষী এক বটগাছ। শত বছরের ইতিহাসের সাক্ষী এই বটগাছ -টি পরিণত হয়েছে আকর্ষণীয় একটি দর্শনীয় স্থানে।

খাগড়াছড়ি আসলে এই বটগাছটি দেখতে ভুলবেন না। খাগড়াছড়ি জেলার মাটিরাংগা উপজেলার খেদাছড়ার কাছাকাছি এলাকায় এ প্রাচীন বটগাছটি শুধু ইতিহাসের সাক্ষী নয়, এটি পরিণত হয়েছে খাগড়াছড়ির একটি আকর্ষণীয় স্থানে। এই গাছটি শতবর্ষ অতিক্রম করেছে বলে স্থানীয়রা মনে করেন। আর তাই একে শতায়ুবর্ষী বটবৃক্ষ বলা হয়ে থাকে। শতবর্ষী এই বটগাছটি তার শেকড় ছড়িয়ে দাঁড়িয়ে আছে শত বছরের স্মৃতি নিয়ে। পাঁচ একরের অধিক জমির ওপরে অবস্থিত এই গাছটি তাই হয়ে উঠেছে দর্শনার্থীদের জন্য দারুণ একটি জায়গা।

ভ্রমণ পিপাসুরা খাগড়াছড়ি বেড়াতে এলে তাই দেখতে ভুলে যান না এই বটবৃক্ষটি। মূল বটগাছটি থেকে নেমে আসা প্রতিটি ডালপালা মাটিতে মিশে কালের পরিক্রমায় এক একটি নতুন বটবৃক্ষে পরিণত হয়েছে। ঝুড়িমূল থেকে সৃষ্ট প্রতিটি বটগাছ তার মূল গাছের সাথে সন্তানের মতো জড়িয়ে আছে। ডালপালা ও শেকড় ছড়িয়ে এই বটবৃক্ষটি তার শত বছরের মহিমাকে ধারণ করে আছে। ঠিক যেনো কোনো জুজুবুড়ি তার জাদুর ঝাড়ু হাতে দাঁড়িয়ে আছে।

গ্রীষ্মের খরতাপে শীতলার খোঁজে লোকজন এখানে চলে আসেন। বটবৃক্ষের ছায়ায় জুড়িয়ে নেন শরীর-মন। অনেকে মনে করেন, এই বটবৃক্ষের তলে বসে শীতল হাওয়া গায়ে লাগালে মানুষও শতবর্ষী হয়। এখানে আগত দর্শনার্থীরা শত বছরের চিহ্ন এই বটগাছের তলে বসে পথের সকল অবসাদ দূরে সরিয়ে মন-প্রাণ সতেজ করে নেন। অতীতের সাক্ষী এই গাছটি শত বছর ধরে পথচারীদের ক্লান্তি-অবসাদ দূর করে আসছে। চারদিকে অসংখ্য শেকড় ছড়ানো এই বটগাছটি একটি শৈল্পিক সৌন্দর্যের উদাহরণ। প্রকৃতির শৈল্পিক সৌন্দর্য যেনো বটবৃক্ষের আকারে চোখে ধরা পড়ে। আর এই সৌন্দর্য দেখতে পর্যটকরা চলে আসেন এই বটবৃক্ষের ছায়াতলে।

কিভাবে যাবেনঃ
ঢাকা থেকে খাগড়াছড়ির দূরত্ব ৩১৬ কিলোমিটার ও চট্টগ্রাম থেকে খাগড়াছড়ির দূরত্ব ১০৯ কিলোমিটার। ঢাকার কমলাপুর, ফকিরাপুল, কলাবাগান, সায়েদাবাদ, মতিঝিল থেকে এসি-ননএসি শান্তি পরিবহন, শ্যামলী, হানিফ, ঈগল, সেন্ট মার্টিন, এস আলম, সৌদিয়া ইত্যাদি দিবা-নৈশবাসে সরাসরি যাওয়া যায়। ঢাকা থেকে খাগড়াছড়ি বাসভাড়া ৫২০ টাকা (নন এসি) থেকে ৭০০ টাকা (এসি)। চট্টগ্রাম থেকে ১৭০ টাকা (লোকাল) থেকে ১৯০ টাকা (বিরতীহীন) মাত্র।

আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে বা এই বিষয়ে কোন কিছু জানানোর থাকলে নীচের মন্তব্য বিভাগে লিখতে ভুলবেন না । আপনার ভ্রমণ পিয়াশি বন্ধুদের সাথে নিবন্ধটি শেয়ার করে নিন যাতে তারাও জানতে পারে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here