নদী গবেষণা ইন্সটিটিউট | ফরিদপুর

0
267

সংক্ষিপ্ত বিবরনঃ

নদী গবেষণা ইনস্টিটিউট ( River Research Institute বা বাংলায় নগই) হল বাংলাদেশের একটি গবেষণা প্রতিষ্ঠান যা প্রধানত বাংলাদেশের বন্যা নিয়ন্ত্রন, নদীর নাব্যতারক্ষা ও পাললিকীকরণ, সেচব্যবস্থা এবং নদীর তীর সংরক্ষণ কাজে জরিপ পরিচালনা ও ব্যবস্থা গ্রহণের কাজ করে থাকে এবং এটি ফরিদপুরে অবস্থিত। এই জাতীয় প্রতিষ্ঠানটি গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের পানিসম্পদ মন্ত্রনালয়ের অধীন একটি সংবিধিবদ্ধ সংস্থা। নদী গবেষণা ইনস্টিটিউট তিনটি বিভাগের সমন্বয়ে গঠিতঃ হাইড্রলিক রিসার্চ, জিওটেকনিক্যাল রিসার্চ এবং অর্থ ও প্রশাসন পরিদপ্তর।

১৯৪৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হইড্রলিক রিসার্চ ল্যাবরেটরি-র সাথে একীভূত হয়ে ১৯৭৭ সালে ঢাকায় নদী গবেষণা ইনস্টিটিউটের জন্ম হয়। ১৯৮৯ সালের ১লা জুলাই এটি ঢাকা থেকে ফরিদপুরে স্থানান্তরিত হয়।

বাংলাদেশে নদী গবেষণা ইনস্টিটিউট ১৯৯১ সাল থেকে টেকনিক্যাল জার্নাল (পেশাগত জার্নাল) নামে জার্নাল প্রকাশ করে আসছে। টেকনিক্যাল জার্নাল ২০০০ সালে আইএসএসএন কর্তৃক আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি লাভ করে এবং এটি ISSN:১৬০৬-৯২৭৭ ক্রম হিসেবে রেজিস্ট্রিকৃত হয়।

কিভাবে যাবেনঃ

বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চলে ঢাকা বিভাগের অধীনে অবস্থিত একটি জেলার নাম ফরিদপুর। ২০৭২.৭২ বর্গকিলোমিটার আয়তনের এই জেলার উত্তর ও পূর্বে পদ্মা নদী এবং নদীর ওপারে মানিকগঞ্জ, ঢাকা ও মুন্সীগঞ্জ জেলা অবস্থিত। এছাড়া, ফরিদপুর জেলার পূর্বে মাদারীপুর জেলা, দক্ষিনে গোপালগঞ্জ জেলা এবং পশ্চিমে রাজবাড়ি, নড়াইল এবং মাগুরা জেলা অবস্থিত। ঢাকা থেকে টঙ্গী এবং বাইপাইল হয়ে নদী অতিক্রম করে সড়কপথে ফরিদপুরে পৌছাতে প্রায় ৪ ঘণ্টা সময় লাগবে। সড়কপথে ঢাকা থেকে ফরিদপুরের দূরত্ব ১৩৮ কিলোমিটার।

কি খাবেনঃ

ফরিদপুর শহরে খাওয়ার জন্য বেশকিছু ভালমানের হোটেল ও রেস্টুরেন্ট পেয়ে যাবেন।

আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে বা এই বিষয়ে কোন কিছু জানানোর থাকলে নীচের মন্তব্য বিভাগে লিখতে ভুলবেন না । আপনার ভ্রমণ পিয়াশি বন্ধুদের সাথে নিবন্ধটি শেয়ার করে নিন যাতে তারাও জানতে পারে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here