মনপুরা দ্বীপ | ভোলা

0
416

সংক্ষিপ্ত বিবরনঃ

মনপুরা দ্বীপ( Monpura Island ) হচ্ছে বাংলাদেশের বঙ্গোপসাগর এলাকার উত্তরদিকে মেঘনা নদীর মোহনায় অবস্থিত একটি দ্বীপ। এটি ভোলা জেলার মনপুরা উপজেলায় কিছুটা অংশ জুড়ে অবস্থিত। সাম্প্রতিককালে এই দ্বীপে জলদস্যুদের দ্বারা আক্রমণ হয়েছে। এই দ্বীপের আয়তন ৩৭৩ বর্গ কিলোমিটার। এই দ্বীপের উপকূলীয় অন্যান্য দ্বীপের মধ্যে ভোলা (যা বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় দ্বীপ) এবং হাতিয়া দ্বীপ উল্লেখযোগ্য। প্রতিটি দ্বীপগুলোই ঘনবসতিপূর্ণ।

প্রাকৃতির অপরুপ সৌন্দর্যের লীলাভূমি মনপুরা হচ্ছে ভোলা দ্বীপ থেকে প্রায় ৮০ কিঃ মিঃ দুরত্বে সাগরের বুকে নয়নাভিরাম আরেকটি বিচ্ছিন্ন দ্বীপ। মনগাজী নামে এখানকার এক লোক একদা বাঘের আক্রমনে নিহত হন। তার নামানুসারে মনপুরা নাম করন করা হয়। বাংলাদেশের বৃহওম দ্বীপ ভোলা জেলার মূল ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের অপরূপ লীলা ভূমি রূপালী দ্বীপ মনপুরা। চতুর্দিকে মেঘনা নদীবেষ্টিত সবুজ-শ্যামল ঘেরা মনপুরা। সুবিশাল নদী , চতুর্দিকে বেড়ীবাঁধ, ধানের ক্ষেত, বিশাল ম্যানগ্রোভ প্রজাতির গাছের বাগানে সমৃদ্ধ।

বঙ্গোপসাগরের কোল ঘেঁষে মেঘনার মোহনায় ৪টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত মনপুরা উপজেলায় লক্ষাধিক লোকের বসবাস। মিয়া জমিরশাহ’র স্মৃতি বিজড়িত মনপুরা দ্বীপ অতি প্রাচীন। একসময় এ দ্বীপে পর্তুগীজদের আস্তানা ছিল। তারই নিদর্শন হিসেবে দেখতে পাওয়া যায় লম্বা লোমওয়ালা কুকুর।

বাংলাদেশের বৃহওম দ্বীপ ভোলা জেলার মুল ভুখন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন দ্বীপ উপজেলা মনপুরা। মেঘনার কোল ঘেসে জেগে ওঠা তিন দিকে মেঘনাআর একদিকে বঙ্গোপসাগর বেষ্টিত অপরূপ প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের অপরুপ সাজে সজ্জিত লীলাভূমি মনপুরা। ভোলা জেলা সদর থেকে ৮০ কিলোমিটার দক্ষিন পুর্ব দিকে বঙ্গোপসাগরের কোলঘেষে মেঘনার মোহনায় চারটি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত মনপুরা উপজেলা। মনপুরা সদর থেকে দুই কিলোমিটার উত্তর-পূর্ব পাশে গড়ে উঠেছে মনপুরা ফিশারিজ লিঃ।

কিভাবে যাবেনঃ

মনপুরা যেতে হলে নৌ পথই একমাত্র মাধ্যম। ঢাকার সদরঘাট থেকে প্রতিদিন ২ টি লঞ্চ মনপুরা হয়ে হাতিয়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় এবং হাতিয়া থেকে প্রতিদিন ২ টি লঞ্চ মনপুরা হয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। তাছাড়া আরও ২ টি লঞ্চ আছে, একটি লঞ্চ প্রতিদিন ঢাকা থেকে হাতিয়া না যেয়ে শুধু মনপুরার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায় এবং অন্যটি মনপুরা থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ফিরে আসে।
ক) ঢাকা থেকে মনপুরার উদ্দেশ্যে বিকেল ৫ টায় ছেড়ে যায়:
১) এম ভি পানামা, (মোবাইল: 01711-349257)
২) এম ভি টিপু -৫ ( মোবাইল: 01711-348813)
প্রতিদিন এই দুটি লঞ্চের একটি ঢাকা থেকে মনপুরার উদ্দেশ্যে বিকেল ৫ টায় ছেড়ে যায় এবং অন্যটি দুপুর ১২ টায় মনপুরা থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ফিরে আসে।
খ) ঢাকা থেকে বিকেল ৫.৩০ মিনিটে মনপুরা হয়ে হাতিয়ার উদ্দেশ্যে :
১) এম ভি ফারহান-৩ ( মোবাইল: 01785-630366)
২) এম ভি ফারহান-৪ ( মোবাইল: 01785-630368 থেকে 70 পর্যন্ত) 
প্রতিদিন এই দুটি লঞ্চের একটি ঢাকা থেকে মনপুরা হয়ে হাতিয়ার উদ্দেশ্যে বিকেল ৫. ৩০ মিনিটে ছেড়ে যায় এবং অন্যটি দুপুর ১২ টায় হাতিয়া থেকে মনপুরা হয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে ফিরে আসে।
গ) ঢাকা থেকে প্রতিদিন সন্ধ্যে ৬.০০ টায় মনপুরা হয়ে হাতিয়ার উদ্দেশ্যে :
১) এম ভি তাসরিফ-১ ( মোবাইল: 
২) এম ভি তাসরিফ -২ ( মোবাইল: 01730-476824)
প্রতিদিন এই দুটি লঞ্চের একটি ঢাকা থেকে মনপুরা হয়ে হাতিয়ার উদ্দেশ্যে বিকেল ৬. ০০ টায় ছেড়ে যায় এবং অন্যটি দুপুর ১
টায় হাতিয়া থেকে মনপুরা হয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে ফিরে আসে।
এই ৬ টি লঞ্চের মধ্যে পানামা ও টিপু ছাড়া বাকি ৪ টি লঞ্চই লাক্সারিয়াস। ভ্রমণে অনেক আনন্দ পাবেন ।

আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে বা এই বিষয়ে কোন কিছু জানানোর থাকলে নীচের মন্তব্য বিভাগে লিখতে ভুলবেন না । আপনার ভ্রমণ পিয়াশি বন্ধুদের সাথে নিবন্ধটি শেয়ার করে নিন যাতে তারাও জানতে পারে ।