ধরন্তি হাওর | ব্রাহ্মণবাড়িয়া

0
771

সংক্ষিপ্ত বিবরনঃ

হাওর ও বিলে ভ্রমণ করতে যারা বেশি পছন্দ করেন তাদের জন্য অন্যতম একটি হাওর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ধরন্তি হাওর( Dhoronti Haor )। এর পশ্চিমে মেঘনা আর পূর্বে তিতাস। মধ্যখানে বিশাল জলাভূমি নিয়ে অবস্থিত ধরন্তি। বর্ষা বাংলার প্রকৃতি সাজে অপরূপ সাজে। তার রূপের আলোকছটা পড়ে ধরন্তির বুকেও। ধরন্তি তখন ফুলে ফেঁপে উঠে জলে।

বৈশাখ থেকে আশ্বিন মাস পর্যন্ত হাওর থাকে পানিতে পূর্ণ। হাওরের জলে সূর্যের আলোক রশ্মি তখন চিক চিক করে উঠে। হাওরের বুক কেটে চলে যাওয়া সরাইল-নাসিরনগর সড়কের দুধারে জল তখন উপচে পড়ে। মূলত ধরন্তির সৌন্দর্য উপভোগে এই সড়কেই জন সমাগম বেশি হয়। পড়ন্ত বিকেলে মৃদু বাতাস আর দু ধার ব্যাপী জল জীবন মনকে অবসাদ মুক্ত করে প্রশান্তিময় করে তোলে। সরাইল নাসিরনগর সড়কটি কয়েক মাইল দীর্ঘ হওয়ায় এর মাঝ দিয়ে হাওরের বুকে অনেক দূর হেটে যেতে পারেন।  এছাড়া মোটর সাইকেলে চড়ে হাওরের দুধারের সৌন্দর্য চমৎকার উপভোগ করতে পারেন। ধরন্তির সৌন্দর্যে মুগ্ধ হয়ে কেউ কেউ  একে মিনি কক্সবাজার বলে থাকে। প্রতিদিন শত শত ভ্রমণ পিপাসীর তৃষ্ণা মেটাচ্ছে এই হাওর। ঈদ পূজা বিভিন্ন উৎসব ঘিরে এখানে মানুষের উপচে পড়া ভিড় দেখা যায়।

এটি মূলত একটি পিকনিক স্পট। চাইলে আপনিও ছুটির দিনে পরিবার বন্ধু বান্ধব নিয়ে ঘুরে আসতে পারেন এখানে। রাজধানী থেকে মাত্র তিন ঘণ্টার দূরত্বে অবস্থিত এই ধরন্তি হাওর। দিনে গিয়ে দিনেই ফিরে আসা যায়।ধরন্তির বুকে নৌকা নিয়ে ঘুরতে চাইলে তাও পারবেন। সড়কের পাশেই নৌকা ভাড়া পাওয়া যায়। নৌকায় ভ্রমণের খরচও সাশ্রয়ী। তবে এখানে দোকানপাট বা বসার কোন স্থান এখনো গড়ে উঠে নি।

কিভাবে যাবেনঃ

ধরন্তিতে পৌছানো বেশ সহজ। ঢাকা থেকে আপনাকে সরাইল বিশ্বরোডে নামতে হবে। এখান থেকে সিএনজি অটোরিকশা নাসিরনগরে নিয়মিত চলাচল করে। এসকল সিএনজি অটোরিকশার যেকোনো একটিতে করে প্রায় ৪০/- টাকা থেকে ৬০/- টাকা ভাড়ায় নাসিরনগরে যেতে পারবেন।
চারপাশে অথৈ পানি দেখতে পেলেই বুঝে যাবেন যে আপনি আপনার গন্তব্যে এসে গিয়েছেন। এখানে ভ্রমনকালে পথের পাশে সেতুর রেলিং এর উপর বসে কিছু সময় বিশ্রাম নিয়ে নিতে পারবেন। এরকম একটি সেতুর জিপিএস অবস্থান হল (২৪° ৭’২৪.২১”উ, ৯১° ৭’৫৯.১০”পু)। এখানে যে পাখিটি সচরাচর চোখে পড়ে তা হলো ফিঙ্গে। এছাড়া আপনি শিকারের প্রত্যাশায় চিলকেও পানির উপর উড়ে বেড়াতে দেখবেন।

আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে বা এই বিষয়ে কোন কিছু জানানোর থাকলে নীচের মন্তব্য বিভাগে লিখতে ভুলবেন না । আপনার ভ্রমণ পিয়াশি বন্ধুদের সাথে নিবন্ধটি শেয়ার করে নিন যাতে তারাও জানতে পারে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here