বাইক্কা বিল | শ্রীমঙ্গল

0
474

সংক্ষিপ্ত বিবরণঃ

বাইক্কা বিল( Baikka Beel ), ঢাকা থেকে ২০০ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে মৌলভীবাজার জেলার প্রখ্যাত চা-সমৃদ্ধ শহর শ্রীমঙ্গলের হাইল হাওড়ের পূর্বদিকের প্রায় ১০০ হেক্টর আয়তনের একটি জলাভূমির নাম। ১ জুলাই ২০০৩ তারিখে বাংলাদেশের ভূমি মন্ত্রণালয় এই বিলটিকে মৎস্য সম্পদের একটি অভয়াশ্রম হিসেবে সংরক্ষণের সিদ্ধান্ত নেয়। আইড়, কই, মেনি, ফলি, পাবদাসহ আরো অনেক প্রজাতির মাছ এখানে বংশবৃদ্ধি করে পুরো হাওড়ে ছড়িয়ে পড়ে। এই বিল মাছের জন্যেই শুধু নয়, পাখি এবং অন্যান্য অনেক প্রাণীর জন্যও একটি চমৎকার নিরাপদ আবাসস্থল। এটি একটি নয়নাভিরাম জলাভূমি যেখানে হাজারো শাপলা আর পদ্ম ফুল ফোটে। এছাড়া এই বিলের বুনো বাসিন্দা আর শীতে আগত পরিযায়ী পাখিদের ভালোভাবে দেখার জন্য তৈরি করা হয়েছে একটি পর্যবেক্ষণ টাওয়ার।

বিলের কিনারে ফোটে হাজারো পানা, শাপলা আর পদ্মফুল। বিলের পানিতে সকাল-সন্ধ্যা চলে রঙ্গীন ফড়িংয়ের বিরতিহীন উড়াউড়ি। বৃষ্টিহীন উষ্ণদিনে বিলের ফুলের পাশে আসে আরো একদল পতঙ্গপ্রজাতি। প্রকৃতিপ্রেমীর চোখে পাখিই এই অভয়াশ্রমের সেরা প্রাণী। শীত মৌসুমে এখানে আসে বিভিন্ন প্রজাতির পরিযায়ী পাখি। এই বিলের উল্লেখযোগ্য পাখি- পানকৌড়ি, কানিবক, ধলাবক, গোবক, ধুপনিবক, রাঙ্গাবক, দলপিপি, নেউপিপি, পান মুরগি, বেগুনি কালেম, কালোমাথা কাস্তেচরা, শঙ্খ চিল, পালাসী কুড়া ঈগল। শীতের অতিথি হয়ে এই বিলে আসে অনেক জাতের সৈকত পাখি। এদের মধ্যে- গেওয়ালা বাটান, মেটেমাথা চিটি আর কালাপঙ্খ ঠেঙ্গী, ধলা বালিহাঁস, পাতি সরালী, রাজসরালী, মরচেরং, ভূতিহাঁস, গিরিয়াহাঁস, ল্যাঙ্গাহাঁস, গুটি ঈগল ।

কিভাবে যাবেনঃ

শ্রীমঙ্গল শহরের স্টেশন রোড থেকে সিএনজি অটোরিকশা ভাড়া করে এই বিলে আসতে আপনার প্রায় ৪০০/- টাকা থেকে ৫০০/- টাকা খরচ পরবে। তবে ব্যাক্তিগত গাড়িতে আসলে ফোর হুইল ড্রাইভ জীপ অথবা এই জাতীয় ভারি গাড়িতে আসাই ভাল কারন এখানকার রাস্তা মোটেও ছোট গাড়ির জন্য উপযুক্ত নয়। মৌলভীবাজারের পথ ধরে প্রায় ৬ কিলোমিটার অগ্রসর হলে এই বিলে পৌঁছানোর নির্দেশিকা সম্বলিত সাইন বোর্ডটি আপনার বাম পাশে পরবে। আপনি সাইন বোর্ডের নির্দেশনা সম্বলিত রাস্তায় পৌছাবেন এছাড়াও দিক নির্দেশনার জন্য আপনি স্থানীয়দেরও সাহায্য নিতে পারেন।

এখানকার গ্রামের মেঠো পথে আপনি হাঁটতে পারেন অথবা সাইকেলও চালাতে পারেন। হাঁটতে চাইলে আপনাকে মহাসড়কের নির্দেশনা সম্বলিত স্থানে বাস থেকে নেমে পরতে হবে। তারপর হেঁটে বইক্কা বিলে পৌছাতে প্রায় ২ ঘণ্টা সময় লাগবে। বিলে পৌছানোর রাস্তাটি প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর গ্রামবাংলার চিরচেনা পথের মতই।

ভ্রমন টিপসঃ

খুব সকালে সূর্যোদয়ের পরের দুই ঘণ্টা এবং সূর্যাস্তের পরের দুই ঘণ্টা এখানে পাখিদের দেখার জন্য সবচেয়ে ভাল সময়। বিকালে পাখি দেখার পরিকল্পনা করলে আপনাকে খুব সকালেই দিন শুরু করতে হবে এবং এতে করে দুপুর ৩ টার মধ্যেই আপনি বিলে পৌঁছে যাবেন এবং পাখিদের দেখার জন্য ও ছবি তোলার জন্য পর্যাপ্ত সময় পাবেন। প্রাণী ও পাখিদের ছবি তোলার অভ্যাস থাকলে সাথে করে টেলিলেন্স আনতে ভুলবেন না। আপনি নৌকা ভাড়া করেও পাখিদের খুব কাছাকাছি পৌঁছে যেতে পারেন।

আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে বা এই বিষয়ে কোন কিছু জানানোর থাকলে নীচের মন্তব্য বিভাগে লিখতে ভুলবেন না । আপনার ভ্রমণ পিয়াশি বন্ধুদের সাথে নিবন্ধটি শেয়ার করে নিন যাতে তারাও জানতে পারে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here